শিরোনাম :
কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের ঝাঁজ

কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের ঝাঁজ

রাজধানীর বাজারগুলোতে কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম। দুদিনের ব্যবধানে পাইকারি বাজারে ৭০-৮০ টাকা পেঁয়াজের দাম কমেছে। দেশি পেঁয়াজ ১৫০-১৬০ টাকা এবং নতুন পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১০০-১২০ টাকায়। এছাড়া, আমদানি করা চায়না পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১০০-১১০ টাকায়।

জানা যায়, ইতোমধ্যে বাজারে উঠতে শুরু করেছে নতুন দেশি পেঁয়াজ। এছাড়া, সংকট মোকাবেলায় সরকার বিভিন্ন দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি করছে। পাশাপাশি পেঁয়াজের কারসাজিদের ধরতে বিভিন্ন সংস্থা পেঁয়াজের বাজারে নিয়মিত অভিযান চালাচ্ছে। এসব নানা কারণে পেঁয়াজের দাম কমছে। দাম কমার এ ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকলে আগামী কয়েক দিনের মধ্যে বাজার স্বাভাবিক হয়ে যাবে বলে আশা করছেন সাধারন ক্রেতারা।

সোমবার (১৮ নভেম্বর) শ্যামবাজারে পাইকারি দরে দেশি পেঁয়াজ বিক্রি করতে দেখা যায় মানভেদে ১৫০-১৬০ টাকা। দুদিন আগেও ২১০-২৩০ টাকা এর দাম ছিল।

তবে পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের দাম কিছুটা কমলেও এখনও পুরোপুরি এর প্রভাব খুচরা বাজারে পড়েনি।

গত ২৯ সেপ্টেম্বর হঠাৎ করেই ভারত পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করায় পেঁয়াজের বাজার অস্থির হয়ে পড়ে। এরপর থেকেই বাড়তে থাকে পেঁয়াজের দাম। ওইদিনই ১০০ টাকায় পৌঁছায় যায় দেশি পেঁয়াজের কেজি। পরে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের পর আবাএরপর দফায় দফায় অপ্রতিরোধ্য পেঁয়াজের দাম সর্বোচ্চ বেড়ে হয় ২৫০ টাকায়।

পেঁয়াজের সংকট মোকাবিলায় বিকল্প হিসেবে মিয়ানমার থেকে পেঁয়াজ আমদানি শুরু করে সরকার। পাশাপাশি মিসর ও তুরস্ক থেকেও পেঁয়াজ আমদানি শুরু করা হয়। এছাড়া মিসর থেকে কার্গো বিমানে করে পেঁয়াজ আমদানির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। যার প্রথম চালান মঙ্গলবার ঢাকায় পৌঁছাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top