শিরোনাম :
আন্তর্জাতিক বড় ক্রীড়া আসরে ৪ বছর নিষিদ্ধ রাশিয়া

আন্তর্জাতিক বড় ক্রীড়া আসরে ৪ বছর নিষিদ্ধ রাশিয়া

ডোপিংয়ে পৃষ্ঠপোষকতার কারণে সব ধরনের আন্তর্জাতিক ক্রীড়া আসর থেকে আগামী চার বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছে রাশিয়া। ওয়ার্ল্ড এন্টি-ডোপিং এজেন্সির (ওয়াডা) এই নিষেধাজ্ঞার ফলে ২০২০ টোকিও অলিম্পিক এবং ২০২২ সালের কাতার ফুটবল বিশ্বকাপেও অংশ নিতে পারবে না দেশটি।

তবে রাশিয়ার কোনো অ্যাথলেট কোনো প্রতিযোগিতায় খেলতে চাইলে নিরপেক্ষ পতাকা নিয়ে অংশ নিতে পারবে।

২০১৯ সালে জানুয়ারির তদন্তে ডোপিংয়ের নমুনা নিয়ে কারসাজি করার অভিযোগ উঠেছিল রাশিয়ার বিপক্ষে। সোমবার (৯ ডিসেম্বর) সুইজারল্যান্ডের লজানে ওয়াডার কার্যনির্বাহী কমিটি সর্বসম্মতিক্রমে দেশটিকে চার বছরের জন্য নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

অবশ্য নিষেধাজ্ঞার মধ্যেই ২০২০ সালের ইউরো কাপে অংশ নিতে পারবে রাশিয়া। কারণ ওয়াডা’র ‘আন্তর্জাতিক বড় আসর’ হিসেবে ইউরো কাপকে বিবেচনা করা হয় না।

তবে এই নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে ২১ দিনের মধ্যে আবেদন করতে পারবে রাশিয়া। যদি তারা সেটা করে, তবে এই আবেদন চলে যাবে কোর্ট অব আরবিট্রেশন ফর স্পোর্টসের (সিএএস) কাছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালের পর থেকে দেশ হিসেবে অ্যাথলেটিকসে নিষিদ্ধ রয়েছে রাশিয়া। ডোপিংয়ের দায়ে দেশের উপর নিষেধাজ্ঞা আসার পর ২০১৮ অলিম্পিকে ১৬৮ জন রাশিয়ান অ্যাথলেট নিরপেক্ষ পতাকা নিয়ে অংশগ্রহণ করেছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top