শিরোনাম :
করোনাভাইরাস : চীনে ফ্ল্যাগশিপ স্টোর বন্ধ করলো স্যামসাং

করোনাভাইরাস : চীনে ফ্ল্যাগশিপ স্টোর বন্ধ করলো স্যামসাং

দক্ষিণ কোরিয়াভিত্তিক বিশ্বের শীর্ষ স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান স্যামসাং চীনে তাদের সর্ববৃহৎ ফ্ল্যাগশিপ স্টোর বন্ধ করে দিয়েছে। সোমবার কোম্পানিটির এক কর্মকর্তা এই ঘোষণা দিয়ে বলেন, উৎসস্থল চীন থেকে গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়া মহামারি নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ও বিস্তার ঠেকাতেই এমন পদক্ষেপ নিয়েছে তারা।

চীনের অন্যতম বাণিজ্যিক শহর সাংহাইয়ে আগামী রোববার পর্যন্ত ফ্ল্যাগশিপ স্টোর বন্ধ থাকবে বলে কোম্পানিটি জানিয়েছে। প্রায় ৮০০ বর্গমিটারের ওই স্টোরটি চীনে স্যামসাংয়ের সর্ববৃহৎ প্রদর্শনী কেন্দ্র। গত অক্টোবরে ওই স্টোরটি চালু হওয়ার পর থেকে সেখানে স্মার্টফোন থেকে ট্যাবলয়েড পর্যন্ত সব পণ্য পাওয়া যেত।

স্থানীয় সংবাদ সংস্থা ইয়নহাপের প্রতিবেদন অনুযায়ী স্যামসাং চায়নার এক কর্মকর্তা বলেন, ‘সুরক্ষার কথা মাথায় রেখেই আমরা সাময়িকভাবে ফ্ল্যাগশিপ স্টোরটি বন্ধ করে দিয়েছি।’ মহামারী করোনভাইরাসের বিষয়টি উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘ওই স্টোরের কার্যক্রম পুনরায় চালু হওয়ার বিষয়টি নির্ভর করবে চীনের সামগ্রিক পরিস্থিতির ওপর।’

বিশ্লেষকরা বলছেন, মহামারি নভেল করোনাভাইরাসে কারণে বিশ্বব্যাপী স্মার্টফোন সরবরাহ এবং চাহিদার ক্ষেত্রে চীনের ভারসাম্যহীনতা তৈরি হবে। বাজার বিশ্লেষকদের দাবি, চীনসহ গোটা বিশ্বে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার কারণে বিশ্বে স্মার্টফোন সরবরাহ প্রাক্কলনের চেয়ে ২ শতাংশ কমে যেতে পারে।

তবে স্যামসাং প্রথম নয় ইতোমধ্যে চীনে সাময়িকভাবে সব অফিস বন্ধ করে দিয়েছে মার্কিন প্রযুক্তি জায়ান্ট গুগল। শুধু চীনের মূল ভূখণ্ড নয় হংকং এবং তাইওয়ানে অবস্থিত সব অফিসও বন্ধ করে দেয়ার ঘোষণা দেয় গুগল কর্তৃপক্ষ। এর আগে চীনে একটি স্টোর বন্ধ করে দেয়ার কথা জানায় আরেক মার্কিন প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান অ্যাপলও।

অ্যাপল জানায়, চীনে তাদের ভোক্তার সংখ্যা কমে গেছে। মানুষ এখন বাড়ির বাইরে বের হচ্ছে না। এছাড়া কর্মীদের এই ভাইরাসে আক্রান্তের সম্ভাবনা থাকায় তারা স্টোর বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ব্যবসায়িক প্রয়োজনে চীন ভ্রমণের ক্ষেত্রেও সীমাবদ্ধতা আরোপ করে কোম্পানিটি।

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে চীনে প্রায় অর্ধেক আউটলেট বন্ধ ঘোষণা করেছে জনপ্রিয় মার্কিন কফি সরবরাহ কোম্পানি স্টারবাকস। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে না আসা পর্যন্ত দুই হাজার আউটলেট বন্ধ রাখবে তারা। যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে চীনেই সবচেয়ে বেশি প্রায় ৪ হাজার তিনশ আউটলেট রয়েছে স্টারবাকসের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top